জরিপ বলছে আবার মমতা

ভোরের বাংলাদেশ ডেস্ক : বিজেপির ‘বাংলা স্বপ্ন’ ভেঙে গেল? বুথফেরত বেশিরভাগ জরিপ সে কথাই বলছে। ইঙ্গিত মিলছেÑ লড়াই হাড্ডাহাড্ডি বটে, তবে পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতায় থাকছেন মমতাই। তা হলে ‘ভাঙা’ পায়েই খেলা হলো, খেলা ‘খতম’ করতে পারলেন না নরেন্দ্র মোদি। দিদির তা হলে হ্যাটট্রিক হচ্ছে, হার্টঅ্যাটাক নয়; যেমনটি বিজেপি ভেবেছিল। ‘উনিশে হাফ’ করতে পারলেও তৃণমূলকে ‘একুশে সাফ’ করতে ব্যর্থ হলেন অমিত শাহ।
আসাম, কেরালা ও তামিলনাড়– রাজ্য এবং কেন্দ্রীয় অঞ্চল পুদুচেরিতেও বিধানসভার ভোট হয়েছে। জরিপে দেখা যাচ্ছেÑ আসাম থাকছে বিজেপির ঝুলিতেই, কেরালা এবারও বামদুর্গ থাকতে পারে, তামিলনাড়–তে এক দশক পর ক্ষমতায় ফিরতে যাচ্ছে স্টালিনের নেতৃত্বাধীন দল ডিএমকে। আর পুদুচেরিতে বিজেপি-জোট জিততেও পারে।
পশ্চিমবঙ্গে আট দফার ভোটগ্রহণ শেষ হতেই গতকাল সন্ধ্যায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বুথফেরত জরিপ প্রকাশ করা শুরু করে। সরকার গঠনে দরকারের চেয়ে বেশি আসনে ক্ষমতাসীন তৃণমূলের জয় পাওয়ার ইঙ্গিত পাওয়া গেছে ছয়টি জরিপের গড় ফলে। তবে আভাস মিলছেÑ হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) তৃণমূলকে ‘ধরি-ধরি’ করছে। চিত্র যা, এতে বোঝা যাচ্ছেÑ বামদলগুলো ও কংগ্রেস এবারও তাৎপর্যহীন, দিশাহীন।
পশ্চিমবঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ২০১১ সালে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে ক্ষমতায় এসেছিলেন। ষোলো সালেও তিনি জয় পান। এবার জয় পেলে টানা তিনবার তার নেতৃত্বে জয় পাবে তৃণমূল।
বাংলাদেশ সময় গতরাত ১২টা পর্যন্ত টাইমস অব ইন্ডিয়ার বুথফেরত
জরিপে পশ্চিমবঙ্গের ভোটে সবচেয়ে শক্তিশালী অবস্থানে দেখা যাচ্ছে তৃণমূলকে। তারা ১৫৮ আসন পর্যন্ত জিততে পারে আভাস মিলেছে। এ রাজ্যে মোট আসন ২৯৪টি। জয়ের জন্য দরকার ১৪৮টি। বিজেপি পেতে পারে ১১৫ আসন। ইন্ডিয়া টুডে ও এক্সিস মাই ইন্ডিয়ার জরিপ বলছেÑ তৃণমূল জয় পেতে পারে ১৩০ থেকে ১৫৬ আসনে। বিজেপি পেতে পারে ১৩৪ থেকে ১৬০। আর কংগ্রেস ও বামজোট পেতে পারে তিন আসন। এবিপি ও সি ভোটারের জরিপ বলছেÑ তৃণমূল পেতে পারে ১৫২ থেকে ১৬৪ আসন, বিজেপি ১০৯ থেকে ১২১ আসন। এ ছাড়া কংগ্রেস ও বামজোট পেতে পারে ১৪ থেকে ২৫ আসন।
বিজেপি শেষ দফার ভোটের আগ পর্যন্ত বলে আসছিলÑ তারা বিশাল ব্যবধানে জয় পেয়ে বাংলায় সরকার গঠন করবে।
সেই আশায় গড়জরিপে গুড়েবালি মনে হলেও টাইমস অব ইন্ডিয়ার জরিপে শুরুতে বিজেপিই এগিয়ে ছিল ১৪৩ আসনে জয়ের সম্ভাবনা নিয়ে, বিপরীতে তৃণমূল ছিল ১৩৩ আসনের জয়সম্ভাবী। এ প্রতিবেদন লেখার সময় এনডিটিভির জরিপে তৃণমূলের অবস্থান ছিল ১৫৬ আসন নিয়ে নিশ্চিন্তে সরকার গঠনে এগিয়ে থাকা দল; বিজেপির সম্ভাব্য আসন ১২১। তবে জন কি বাতের এক জরিপে দেখানো হচ্ছিলÑ বিজেপি ১৬২ থেকে ১৮৫ পর্যন্ত আসন পেতে পারে। তবে আসল এবং বিস্তারিত চিত্র পাওয়ার জন্য অন্তত রবিবার অব্দি অপেক্ষা করতে হবে।
বুথফেরত জরিপের ফল যাই ইঙ্গিত করুক না কেন, পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল ও বিজেপি উভয় দলই নিজেদের জয়ী দাবি করছে। তৃণমূলের মুখপাত্র তথা রাজ্যের বিদায়ী মন্ত্রী তাপস রায় বলেন, ‘আমরা সব বুথফেরত সমীক্ষারই ফল দেখেছি। কোনো হাড্ডাহাড্ডি লড়াই নেই। আমরাই নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ফিরছি। তৃতীয়বারের জন্য ম্খ্যুমন্ত্রী হবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।’ অন্যদিকে রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু দাবি করেছেন, কোনো বুথফেরত সমীক্ষার ওপরেই ভরসা নেই তাদের। তিনি বলেন, এত কম নমুনার ওপরে এই সমীক্ষা হয় যে, তা বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই কোনো আভাস দিতে পারে না। আর দুটো দিন অপেক্ষা করাই ভালো। রবিবারই বাংলার মানুষের রায় জানা যাবে। বিজেপি পর্যাপ্ত গরিষ্ঠতা নিয়ে বাংলায় সরকার গড়বে।
এদিকে পশ্চিমবঙ্গের চিত্র যাই হোক, আসামে যে বিজেপিই আবার সরকার গড়তে চলেছে তা বুথফেরত জরিপে স্পস্ট। টাইমস অব ইন্ডিয়ার জরিপ বলছে, সেখানে ১২৬ আসনের মধ্যে বিজেপি জোট পেতে পারে ৭২ ও ইউপিএ জোট পেতে পারে ৫২ আসন। ইন্ডিয়া টুডে ও অ্যাক্সিস মাই ইন্ডিয়া বলছে, বিজেপি ৭৫ থেকে ৮৫ ও এনডিএ জোট ৪০ থেকে ৫০টি আসন পেতে পারে। অন্যদিকে কেরালায় সব সমীক্ষাতেই এগিয়ে রয়েছে বামজোট। ইন্ডিয়া টুডে-অ্যাক্সিস মাই ইন্ডিয়ার সমীক্ষায় দেখা গেছে বামজোট জিততে পারে ১০৪-১২০ আসনে। ইউডিএফ পেতে পারে ২০-৩৬ আসন। বিজেপি পেতে পারে ০-২ আসন। আবার পুদুচেরিতে এগিয়ে আছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ।

Pin It

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *