নবাবগঞ্জে রাতের আধারে সরকারি গাছ কর্তন

হিলি প্রতিনিধি।
দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার ৬নং ভাদুড়িয়া ইউনিয়নের শাল্টী মুরাদপুর নামক
গ্রামের রাস্তার দরিদ্র বিমোচন পরিবেশ উন্নয়ন সামাজিক সম্পদ বৃদ্ধির লক্ষে বৃক্ষ
রোপন করা গাছ কাটার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় চার জনের বিরুদ্ধে।
গত সোমবার (১৪ জুন) রাতের আধারে ১১টি গাছ কেটেছে বলে অভিযোগ করে
উপকারভোগী শামীম শাহ।
যাদের নামে গাছ কাটার অভিযোগ তারা হলেন, নবাবগঞ্জ উপজেলার ৬নং ভাদুরিয়া
ইউনিয়নের পুটিহার গ্রামের মাহমুদুল ইসলাম, আব্দুল মতিন, এমদাদুল হক উভরের
পিতা মৃত- আব্দুল লতিফ এবং একই গ্রামের মৃত বয়েজ উদ্দীনের ছেলে
ফাকরুজ্জামান।
উপকারভোগী শামীম শাহ জানান, শাল্টি মুরাদপুর উত্তরপাড়া মোড় থেকে ছাতনী
পাড়া পর্যন্ত এবং পুটিহার গভীর নলকুপের মোড় হইতে জোড়গাড়ী পর্যন্ত মোট ২
(দুই) কিলোমিটার রাস্তায় বৃক্ষ রোপন করা হয়। গত ১১/০৭/২০০৭ ইং তারিখে
ইউনিয়ন পরিষদ থেকে তাকে ২০ বছরের জন্য চুক্তিপত্রের মাধ্যমে তাকে মালিক
হিসেবে দায়িত্ব দেয় স্থানীয় সরকার। চুক্তিপত্রে লেখা আছে ২০ বছরের আগে কোন
গাছ কর্তন করা যাবে না। এমতাবস্থায় উপরোক্ত চারজনসহ নাম অজানা ৮/১০ জন
মিলে রাতের আধারে প্রায় লক্ষাধীক টাকার মূল্যের ১১টি গাছ কেটেছে। এ বিষয়ে
নবাবগঞ্জ থানায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে বলেও জানান তিনি এবং তদন্ত সাপেক্ষে এর
সুষ্ঠ বিচার দাবি করেন।

এই রকম আরো কিছু খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button