বন্দরে জঙ্গি আস্তানায় অভিযান বোমা তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার

বন্দর প্রতিনিধি:
বন্দরে একটি জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ বোমা
তৈরির সরঞ্জাম, রিমোট ও বিপুল পরিমাণ জিহাদি বই উদ্ধার করেছে
ঢাকার কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট সিটিটিসি। গত রোববার
দিবাগত রাত সাড়ে ৩টা পর্যন্ত বন্দর উপজেলার ধামগড় ইউনিয়নের
কাজীপাড়ার একটি বাড়িতে এ অভিযান চালায় সিটিটিসি।
অভিযানের পর সিটিটিসি প্রধান আসাদুজ্জামান সাংবাদিকদের
জানান, সিটিটিসির একটি টিম তিন দিন আগে বারেক ওরফে
সাব্বিরসহ তিন জঙ্গিকে ঢাকার মিরপুর থেকে গ্রেফতার করে। বারেকের
দেয়া তথ্যানুযায়ী রোববার সন্ধ্যায় কেরানীগঞ্জ থেকে মেজর ওসামা ওরফে
নাইমকে গ্রেফতার করে সিটিটিসি। জিজ্ঞাসাবাদে নাইম জানায়,
তিনি নব্য জেএমবির একজন সদস্য এবং পাশের একটি মসজিদের ইমাম।
যে বাসা থেকে বোমা তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে সেখানে তিনি
সপরিবারে বসবাস করতেন। কয়েক দিন আগে তিনি পরিবারকে বাড়িতে
পাঠিয়ে দেন। তিনি বলেন, এখানে কমপ্লিট কোনো বোমা পাওয়া
যায়নি। এখানে বোমা তৈরির সরঞ্জাম ও ৪ টি রিমোট এবং শক্তিশালী
আইইডি(ইম্প্রোভাইজড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস) বোমা তৈরির
সামগ্রী পাওয়া গেছে। এলাকাবাসী জানান, বন্দরের ধামগড় ইউনিয়নের

কাজীপাড়া গ্রামের মকবুল হোসেন একজন আহলে হাদিসের অনুসারী।
তিনি কাজীপাড়া এলাকায় আহলে হাদিস নামে বিতর্কিত একটি
মসজিদ প্রতিষ্ঠা করেন। সেই মসজিদের ইমাম ছিলেন গ্রেফতার হওয়া
নাইম। দুই মাস আগে নাইম পরিবারকে দেশের বাড়ি কেরাণীগঞ্জে রেখে
আসেন। এর আগে নব্য জেমএমবির সদস্য আবদুল্লাহ আল মামুনকে
যাত্রীবাড়ি থেকে গ্রেফতারের পর নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারের
নোয়াগাঁও এলাকার জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চালায় কাউন্টার
টেরোরিজম ইউনিট সিটিটিসি। এ সময় বিপুল পরিমাণ বোমা
তৈরির সরঞ্জামসহ একজনকে আটক করা। এ সময় শক্তিশালী তিনটি বোমা
উদ্ধারের পর নিস্ক্রিয় করা হয়। গ্রেফতারকৃত মামুন নোয়াগাঁও
এলাকার মসজিদের মোয়াজ্জিন ছিলেন। গত ১৭ মে সিদ্ধিরগঞ্জের
সাইনবোর্ড এলাকার ট্রাফিক পুলিশ বক্সের সামনে থেকে উদ্ধার করা
দুটি বোমা এদেরই তৈরি বলে জানান সিটিটিসি প্রধান
আসাদুজ্জামান ।

এই রকম আরো কিছু খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button